শিরোনামঃ

করোনার দুর্যোগে কর্মযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন এসিল্যান্ড নূসরাত লায়লা নীরা

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলায় করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে অগ্রণী ভূমিকা রাখায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) নূসরাত লায়লা নীরা এর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশনায় জনপ্রতিনিধি, সশস্ত্র বাহিনী, পুলিশ বিভাগ, স্বাস্থ্য বিভাগ, সুধীমহল ও নাগরিকগণের সহায়তায় করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে অবিরামভাবে অন্তহীন গতিতে জীবন বাজি রেখে যে ত্যাগ স্বীকার করছেন তা এক অনন্য ও অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত উল্লেখ করে সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে লড়াই করে যাওয়ায় ভূমি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এসিল্যান্ড নূসরাত লায়লা নীরাকে অভিনন্দন জানিয়ে আধা-সরকারিপত্র (ডিও লেটার) পাঠিয়েছেন ভূমি মন্ত্রণালয় সচিব মোঃ মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী। গত ১০ জুন সচিবের স্বাক্ষরিত পত্রটি বড়লেখা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নূসরাত লায়লা নীরা পেয়েছেন।

বড়লেখা উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রথম থেকেই কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেন এসিল্যান্ড নূসরাত লায়লা নীরা। করোনা বিস্তার রোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, অসহায় মানুষের ঘরে-ঘরে মানবিক সহায়তা ও ত্রাণ পৌঁছে দেয়া, গণসচেতনতা সৃষ্টিসহ সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে নিরলস পরিশ্রম করছেন। প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করছেন। অভিযানের সময় সার্বক্ষণিক বাজার মনিটরিং করে দ্রব্যমূল্য ক্রয় ক্ষমতার ভিতরে রাখতে চেষ্টা করেছেন। এসব বহুমুখী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করায় তারই স্বীকৃতিস্বরূপ এসিল্যান্ড নূসরাত লায়লা নীরাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ভূমি মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে নূসরাত লায়লা নীরা বলেন, এ স্বীকৃতি নতুন কাজের জন্য আমাকে অনুপ্রেরণা জোগাবে। আমি সামনে আরো ভালো কিছু করার চেষ্টা করবো। যে কোনো স্বীকৃতি কাজে অনুপ্রেরণা জোগায়। করোনা মহামারিসহ সরকারের অর্পিত দায়িত্ব পালনে চেষ্টা করেছি। এসিল্যান্ড হিসেবে সবসময় সরকারি স্বার্থ ও সম্পদ রক্ষার চেষ্টা করেছি। যে কাজ করেছি তা আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেছি মাত্র।

অন্যান্য খবর পড়ুন