শিরোনামঃ

জুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ সম্মেলনের প্রায় দেড় বছর পর মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দিয়েছে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগ। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদ এমপি এবং সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান স্বাক্ষরিত কমিটিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা বদরুল হোসেনকে সভাপতি এবং ফুলতলা ইউপি চেয়ারম্যান মাসুক আহমদকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদ এমপি কমিটির অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
আওয়ামী লীগের দলীয় সূত্রে জানা যায়, ২০০৫ সালে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। দীর্ঘ ১৪ বছর পর ২০১৯ সালের ১২ অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিলে শুধুমাত্র সভাপতি ও সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়। কাউন্সিলের দেড় বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। অবশেষে ২০০৫ সালের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার ১৬ বছর পর উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটি আলোর মুখ দেখল।
পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কমিটিতে স্থান পাওয়া পছন্দের নেতাসহ জুড়ী-বড়লেখা আসনের এমপি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনকে অনেকেই অভিনন্দনসহ  শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহমদ এমপি বলেন, করোনা মহামারীসহ বিভিন্ন কারণে কমিটি প্রকাশে বিলম্ব হয়েছে। আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় একটি প্রাচীনতম রাজনৈতিক দল। দলীয় পদ পাওয়ার ক্ষেত্রে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে বিপুল আকাঙ্ক্ষা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আমি মনে করি, যোগ্যতার ভিত্তিতেই উপজেলা কমিটি করা হয়েছে।
কমিটির অন্যান্যরা হলেন সহ-সভাপতি মাসুক মিয়া, এডভোকেট আব্দুল খালিক, গুলশান আরা মিলি, আদর উদ্দিন, আব্দুন নূর, রঞ্জিত কুমার নাথ, জাকির হোসেন কালা, শামসুজ্জামান রানু, এড. আব্দুর রহমান। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিংকু রঞ্জন দাশ, শাহাব উদ্দিন আহমদ লেমন, বদরুল ইসলাম।
আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান খোকন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক কিশোর রায় চৌধুরী মনি, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আহমদ ফয়ছল নাহিদ, দপ্তর সম্পাদক শরদেন্দু দাশ শেখু, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আশরাফুল মুমীন শরীফ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সালাম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো. আরমান আলী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রঞ্জিতা শর্মা, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস শহীদ চৌধুরী খুশী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ইমরুল ইসলাম, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শাহানা চৌধুরী, শ্রম সম্পাদক সুভাষ গোয়ালা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শিরিন আক্তার, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক বিমল মোদক।
সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল ইসলাম কাজল, জাহাঙ্গীর আলম, আব্দুস সাত্তার। সহ দপ্তর সম্পাদক কমল বোনার্জি, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জামিল আহমদ, কোষাধ্যক্ষ রহমত আলী প্রমুখ।
এছাড়া কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা হলেন হাজী শফিক আহমদ, এম এ মোঈদ ফারুক, আব্দুস সালাম, শ্রীকান্ত দাস, নজরুল ইসলাম চৌধুরী মাখন, আব্দুল কাদির, রাজকুমার বারই, শিবু পদ দে সরকার, কাঞ্চন চক্রবর্তী, আব্দুল কাদির দারা, জুবের হাসান জেবলু, ইছবর আলী, মামুনুর রশীদ সাজু, একলাছ মিয়া, মঈনুল ইসলাম মঈন, কাইয়ূম ভূঁইয়া, আফজাল হোসেন চিকন, শাহীন আহমদ, জিল্লুর রহমান, আনফর আলী, অটল কৃষান সিংহ শিবেন, তাজুল ইসলাম, শাহীন আহমদ, সাচ্চু মিয়া, জোয়ালা প্রসাদ চৌবে, দিলিপ ত্রিপাটি, কাজল বাউরী, মিফতা উদ্দিন কামাল, বাদল রুদ্র পাল, আজিজুর রহমান, বাবু লাল দাশ, সুমন ঘোষ, জাহিদ হোসেন, জমসেদুল ইসলাম, শেখরুল ইসলাম।

অন্যান্য খবর পড়ুন