শিরোনামঃ

জুড়ীতে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের কুচাই চা বাগান থেকে সুলতান মিয়া (৩৫ ) নামের যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত যুবকের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সকালে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী। নিহত সুলতান মিয়া বড়লেখা উপজেলার শাহবাজপুরের আতুয়া বড়াইল গ্রামের মৃত কালা মিয়ার ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে উপজেলার গোয়ালবাড়ি ইউনিয়নের কুচাই চা বাগান এলাকায় এক যুবকের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। পরে লোকজন পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) সাদেক কাউছার দস্তগীর ও জুড়ী থানার অফিসার্স ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ সেখানে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন।

এলাকাবাসীর কাছ থেকে জানা যায়, সুলতান মিয়া রাতে কুচাই বাগানে গরু চুরি করতে যান। খবর পেয়ে এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে তাকে ধরে মারধর করেন। এক পর্যায়ে সে মারা যায় ৷

এ ব্যাপারে গোয়ালবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন লেমন বলেন, নিহত ব্যক্তিকে চোর সন্দেহে পাগলা ঘন্টা বাজিয়ে বাগানের লোকজন পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। হত্যার পর নিহত ব্যক্তির লাশটিকে পরিকল্পনা করে জুড়ী লাঠিটিলা সড়কে কে বা কারা ফেলে যায়। লাশটি সড়কে পড়ে থাকতে দেখে লোকজন পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন, আমরা লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছি। আইন অনুযায়ী পরবর্তী কার্যক্রম নেওয়া হবে।

সহকারী পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) সাদেক কাউছার দস্তগীর বলেন, আমরা লাশটা উদ্ধার করেছি। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তবে কে বা কারা কেনো মরলো বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখবো।

অন্যান্য খবর পড়ুন