শিরোনামঃ

জুড়ীতে বেলাগাঁওয়ের কাটানালাপাড়ে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি এলাকাবাসীর

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের বেলাগাঁও গ্রামের কাটানালাপাড়ে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। দীর্ঘদিন থেকে জনগুরুত্বপূর্ণ ওইস্থানে জরাজীর্ণ অবস্থায় রয়েছে একটি কালভার্ট।

জানা যায়, বেলাগাঁও গ্রামের প্রায় দশ হাজার মানুষের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা এ স্থানে নির্মিত কালভার্টটি। তাছাড়া উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ কে হাকালুকি হাওরে আসা-যাওয়া করতে হয় এই পথ দিয়ে। হাওরের ধান, মাছসহ কৃষিপণ্য নিয়ে যাতায়াতের মাধ্যমও এটি। এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকিতে পর্যটকদের যাতায়াতের যে কয়েকটি প্রবেশপথ রয়েছে এর মধ্যে এ রাস্তাটি অন্যতম। অন্যদিকে এলাকার মানুষের যাতায়াতসহ শিক্ষা, চিকিৎসা, চাকুরি ও ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে এটি অতি গুরুত্বপূর্ণ।

এলাকাবাসী জানান, প্রায় ২৫ বছর পূর্বে এলাকাবাসী চাঁদা তুলে ওই স্থানে একটি কালভার্ট নির্মান করেন। বর্তমানে এ কালভার্টের অবস্থা শোচনীয়। যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এমতাবস্থায় এলাকাবাসী সরকারের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপির নিকট এ স্থানে একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানাচ্ছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা সাইফুল আলম বলেন, আমাদের এলাকার লোকজন চাঁদা তুলে এ কালভার্ট টি নির্মাণ করেছিল। বর্তমানে এটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় আমরা দুশ্চিন্তায় রয়েছি। আমাদের এলাকার এমপি ও মাননীয় মন্ত্রীর নিকট এ স্থানে একটি সুন্দর ব্রিজ নির্মাণের দাবি করছি আমরা।

সমাজসেবক হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, কাটানালাপাড়ে একটি ব্রিজের অভাবে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। এছাড়াও হাকালুকি হাওরে যাতায়াতে মানুষ দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। বর্তমানে এই জায়গায় একটি নতুন ব্রিজ নির্মাণ অতিগুরুত্বপূর্ণ। আমাদের মাননীয় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি মহোদয়ের কাছে এ স্থানে অচিরেই একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ওমর ফারুক বলেন, এ স্থানে ২০১৯/২০২০ অর্থবছরে ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ১৪ ফুট/২৪ ফুট একটি ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ব্রিজ নির্মাণের জায়গাটি পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায় এখানে ১৪ ফুট উচ্চতার ব্রিজ নির্মাণ করা হলে হাকালুকি হাওড়ে যাতায়াত হুমকির মুখে পড়বে। এখানে অপেক্ষাকৃত বেশি উচ্চতার ব্রিজ নির্মাণ করা না গেলে জনসাধারণের চলাচল বিঘ্ন ঘটতে পারে এ আশঙ্কায় আমরা এ প্রকল্পটি এখানে বাস্তবায়ন করেনি। এখানে চাহিদা অনুযায়ী একটি ব্রিজ নির্মাণের বিষয়ে আমরা চিন্তাভাবনা করব।

অন্যান্য খবর পড়ুন