শিরোনামঃ

৭ আগস্ট থেকে জুড়ী উপজেলা গণটিকার জন্য প্রস্তুত

সাইফুল ইসলাম সুমনঃ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আগামী ৭ আগস্ট থেকে সারাদেশে ইউনিয়ন পর্যায়েও করোনার টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ জন্য ইউনিয়ন পরিষদে টিকাকেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী ৭ আগস্ট থেকে টিকা দেওয়ার জন্য মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার সকল ইউনিয়ন প্রস্তুত রয়েছে। সম্প্রতি জুড়ী উপজেলার সকল ইউনিয়নের টিকাকেন্দ্র গুলো পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া সুলতানা।

আগামী ৭ আগস্ট করোনাভাইরাসের গণটিকাদান জুড়ীর যেসব কেন্দ্রে দেয়া যাবে সেগুলো হলো- জায়ফরনগর ইউনিয়নের শাহাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়নের কালনীগড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্বজুড়ী ইউনিয়নের টালিউড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাগরনাল ইউনিয়নের বটনীঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফুলতলা ইউনিয়নের ফুলতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের হাজী কমরউদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

আগামী ৮ আগস্ট যেসব কেন্দ্রে দেয়া যাবে টিকা সেগুলো হলো- জায়ফরনগর ইউনিয়নের হাসনাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাগরনাল ইউনিয়নের পাতিলাসাঙ্গন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফুলতলা ইউনিয়নের কোনাগাঁও এফআইডিভি স্কুল।

আগামী ৯ আগস্ট যেসব কেন্দ্রে দেয়া যাবে টিকা সেগুলো হলো- পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়নের আমতৈল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্বজুড়ী ইউনিয়নের হোছন আলী উচ্চ বিদ্যালয়, গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের মন্ত্রিগাওঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

আগামী ১০ আগস্ট যেসব কেন্দ্রে দেয়া যাবে টিকা সেগুলো হলো- জায়ফরনগর ইউনিয়নের মানিকসিংহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়নের বশিরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্বজুড়ী ইউনিয়নের ছোট ধামাই উচ্চ বিদ্যালয়, সাগরনাল ইউনিয়নের কাপনা পাহাড় চা-বাগান হাসপাতাল, ফুলতলা ইউনিয়নের ফুলতলা চা-বাগান প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোয়ালবাড়ী ইউনিয়নের রত্না সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া সুলতানা বলেন, সবাই জাতে টিকা নিতে পারেন এই সুবিধা সরকার করে দিয়েছে। আমাদের উপজেলার সকল ইউনিয়নের টিকাদান কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত রয়েছে। তিনি আরও জানান, টিকা গ্রহনকারি তাদের এনআইডি কার্ড (ভোটার কার্ড) সাথে নিয়ে এলে টিকা দিতে পারবেন। যাদের বয়স ৫০-এর বেশি তাদের সংক্রমণের হার ৭৫ শতাংশ অথচ এদের মধ্যে টিকা নেননি ৯০ শতাংশ। ৫০ ঊর্ধ্ব সব নাগরিককে টিকার আওতায় আনতেই হবে। এ কাজে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা, রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা এবং ধর্মীয় নেতারা সহযোগিতা করতে হবে।

জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) ডাঃ সমরজিৎ সিংহ বলেন, উল্লেখিত তারিখে টিকাকেন্দ্রে সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৩ টা পর্যন্ত টিকা প্রদান করা হবে। প্রত্যেকটি টিকাকেন্দ্রে ৩টি করে বুথ থাকবে। প্রতিটি বুথে ২জন করে ভ্যাক্সিনেটর ও ৩ জন স্বেচ্ছাসেবী দায়িত্ব পালন করবে। প্রত্যেকটি বুথে দুই শত জন টিকা নিতে পারবে। কেন্দ্রে একটি মেডিকেল টিম থাকবে, সার্বক্ষনিক কেন্দ্রের ফোকাল পয়েন্ট টিকাদান কার্যক্রম তদারকি করবেন।

অন্যান্য খবর পড়ুন