শিরোনামঃ

বর্তমানে পুলিশ জনগণের কল্যাণে কাজ করছে—জুড়ীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সাইফুল ইসলাম সুমন: বাংলাদেশ পুলিশের অনেক ঐতিহ্য রয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশ আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে অসামান্য অবদান রেখেছিল। পুলিশ বাহিনীর সাথে আমাদের স্বাধীনতার অনেক গৌরব উজ্জ্বল ইতিহাস জড়িত। ১২ বছর আগের পুলিশ আর বর্তমান পুলিশ এক নয়। কারণ বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন দেশের নেতৃত্বে। তিনি জনগণের পুলিশ হওয়ার জন্য এই পুলিশ বাহিনীর সক্ষমতা বৃদ্ধিতে কাজ করে যাচ্ছেন।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের আয়োজনে জুড়ী উপজেলায় নবনির্মিত থানার প্রশাসনিক ভবন উদ্বোধন উপলক্ষে শনিবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে থানা চত্বরে আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, এমপি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল তাঁর বক্তব্যে আরও বলেন, পুলিশ বাহিনী জনগণের কল্যাণে কাজ করার পাশাপাশি জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমন সহ সর্বক্ষেত্রে সক্ষমতা অর্জন করেছে। প্রধানমন্ত্রী পুলিশের জনবল ও সক্ষমতা বৃদ্ধি, ট্রেনিং ও নতুন অত্যাধুনিক ভবন নির্মাণ সহ সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধিতে কাজ করে যাচ্ছেন। ৫০ বছর পর ও যাতে পুলিশ স্বাচ্ছন্দ্যে দায়িত্ব পালন করতে পারেন সে জন্যই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পুলিশ বাহিনীর জন্য অত্যাধুনিক ভবন নির্মাণ করে দিচ্ছেন। এ সময় তিনি উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, মাদকমুক্ত দেশ করতে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে। যেমনিভাবে আমরা জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছিলাম, তেমনি ভাবে মাদকের বিরুদ্ধেও দাঁড়াতে হবে।

মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার মোঃ জাকারিয়ার সভাপতিত্বে ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদর্শন কুমার রায়ের সঞ্চালনায় এ সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জুড়ী- বড়লেখা আসনের সংসদ সদস্য এবং পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি, মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, সংরক্ষিত মহিলা আসন (মৌলভীবাজার- হবিগঞ্জ) এর সংসদ সদস্য সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ নিশারুল আরিফ, মৌলভীবাজার জেলার জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বদরুল হোসেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান, জুড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুক, বড়লেখা উপজেলা চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া সুলতানা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুক আহমদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাশ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রঞ্জিতা শর্মা সহ আরও অনেকে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি বলেন, সহজে বিশ্বমানের জনসেবা নিশ্চিত করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার পুলিশ বাহিনীর আধুনিকায়নে বিভিন্নমুখী উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। ফলে দেশের মানুষের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে বাংলাদেশ পুলিশ সহজে পেশাদারিত্বের সাথে পুলিশি সেবা প্রদান করতে পারছে। তিনি আরও বলেন, বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ পুলিশ জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমন, জলদস্যু-বনদস্যু গ্রেফতার; অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র, গোলাবারুদ ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার এবং মানব পাচার রোধে সর্বোচ্চ সফলতার পরিচয় দিচ্ছে।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় জুড়ীর লাঠিটিলায় বঙ্গবন্ধু সাফারিপার্ক নির্মাণ করার উদ্যোগ নিয়েছে ফলে এখানে অধিকহারে দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আগমন ঘটবে। একটি আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত থানাভবন নির্মাণের ফলে জুড়ী থানার পুলিশি কার্যক্রম পরিচালনা করা সহজ হবে, ফলে জুড়ী এলাকার জনগণ ও আগত দেশি-বিদেশি পর্যটকেরা আরও উন্নত ও আধুনিক সেবা পাবে। তিনি বলেন সরকার জেলার সকল থানা ভবন আধুনিকায়ন করবে।

উল্লেখ্য, ‘পুলিশ বিভাগের ১০১টি থানা ভবন টাইপ প্ল্যানে নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় নবনির্মিত আধুনিক থানা কমপ্লেক্স ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে। ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে সরকারের গণপূর্ত অধিদপ্তর ৭,৩১,৪৪,৩৫০ (সাত কোটি একত্রিশ লক্ষ চুয়াল্লিশ হাজার তিনশত পঞ্চাশ) টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে। বিশাল জায়গার উপর নির্মিত ৪ তলা ভবনটিতে রয়েছে অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা। ভবনের সামনে রয়েছে সবুজ মাঠ ও সুদৃশ্য ফুলের বাগান। থানা আঙিনায় প্রবেশের মুখেই বামপাশে রয়েছে একটি নয়নাভিরাম ছোট পুকুর। ২০১৬ সালের ২৯ নভেম্বর জুড়ী থানা ভবনের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন আজকের প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

অন্যান্য খবর পড়ুন