শিরোনামঃ

পিতার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে চায় আব্দুল আলীম সেলু

বিশেষ প্রতিনিধিঃ নেতা নয় নীতি চাই, সত্য যোগ্য পরিশ্রমী লোককে ক্ষমতায় চাই। আলোকিত ঐতিহ্যবাহী জুড়ী উপজেলার ফুলতলা ইউনিয়ন কে একটি ডিজিটাল ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে আসন্ন ইউনিয়ন নির্বাচনে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তরুণ উদ্যোক্তা ও সমাজসেবক গরীবের বন্ধু মো. আব্দুল আলীম সেলু । তিনি ঐতিহ্যবাহী ফুলতলা ইউনিয়নের সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক, শিক্ষামূলক সহ অনেক সেবামূলক কাজে জড়িত রয়েছেন। ফুলতলার বিভিন্ন সমাজসেবা মূলক কাজে সাধারণ মানুষের কাছে ছুটে যাওয়ার পাশাপাশি নিজ ইউনিয়নে বিভিন্ন সামাজিক কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। সকলের স্বপ্নের ফুলতলা ইউনিয়ন কে সকল শেণ্রী-পেশার মানুষের সুচিন্তিত মতামতের ভিত্তিতে একটি সমৃদ্ধশালী ডিজিটাল ইউনিয়ন হিসাবে রুপান্তরিত করতে চান তিনি।

আব্দুল আলীম সেলু ঐতিহ্যবাহী জুড়ী উপজেলার ফুলতলা ইউনিয়নের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম ফয়াজ আলী ফুলতলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। ফয়াজ আলী দীর্ঘ ৩৪ বছর ফুলতলা ইউনিয়নের মেম্বার ও চেয়ারম্যান ছিলেন। আব্দুল আলীম সেলু সেই ছোটবেলা থেকে বাবার সাথে সমাজের গরীব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে কাজ করেছেন। ঐতিহ্যবাহী ফুলতলা ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। সমাজসেবক আব্দুল আলীম সেলু তার পিতা মরহুম ফয়াজ আলীর কাছে থেকে জনগণের পাশে থেকে কি ভাবে সেবা করা যায় সেটা বাবার খুব কাছে থেকে শিখেছেন। পিতার হাত ধরে সমাজের অসহায় মানুষের পাশে সব সময় কাজ করে গিয়েছেন। আব্দুল আলীম সেলু র পরিবার একটি শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পরিবার। সেলুর চাচা আকবর আলী মহান মুক্তিযোদ্ধে শহীদ হন।

আব্দুল আলীম সেলু বলেন, আমার বাবা মরহুম ফয়াজ আলী জনগণের ভোটে নির্বাচিত একজন চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি দীর্ঘ ৩৪ বছর জনগণের সেবা করে গেছেন। বাবা সারা জীবন মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানা, মাজার, স্কুল, চা-বাগান, রাস্তা-ঘাট সহ এলাকার বিভিন্ন সামাজিক কাজে নিজেকে উৎসর্গ করেছেন। জনগণের জন্য বাবার দরজা সব সময় খোলা ছিল। তিনি গরীব মানুষের বন্ধু ছিলেন, কোন গরীব মানুষ তার কাছে থেকে খালি হাতে ফিরে যায়নি কখনো। আমি চাই বাবার অসমাপ্ত কাজ এবং জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা বাস্তবায়নে আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে চাই। এজন্য সকলের দোয়া, আশীর্বাদ ও সমর্থন কামনা করছি।

আব্দুল আলীম সেলু করোনাকালীন সময়ে গরীব অসহায় মানুষদের বিভিন্ন ভাবে সাহায্য সহযোগিতা করেছেন। শীত বস্ত্র দান, অসহায় মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত, হতদরিদ্র ও প্রতিবন্ধী, ইমাম, মুয়াজ্জিন, কুরআনের হাফেজদের পাশে দাঁড়িয়েছেন, রমজানে উপহার সামগ্রী বিতরণ, ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ, ইফতার বিতরণ সহ নানা সমাজসেবা মূলক কার্যক্রম করেছেন। তিনি নিজ ব্যক্তিগত উদ্যোগে ইউনিয়নের বিভিন্ন প্রান্তের দরিদ্র জনগণের মাঝে খাদ্য ও ত্রাণ সামগ্রী দিয়েছেন। বিনামূল্যে দরিদ্রদের স্বাস্থ্যসেবা,পরিবেশের সৌন্দর্য বৃদ্ধি, বৃক্ষরোপন ইত্যাদি সহ অসংখ্য কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন তিনি।

ঐতিহ্যবাহী ফুলতলা ইউনিয়নের জনগণ আব্দুল আলীম সেলুর মত একজন মহৎ, সৎ, যোগ্য, সুন্দর মনের ব্যক্তিকে তাদের সেবক হিসেবে পেতে চায়। তাই দেশে বিদেশে বসবাসরত এলাকার সকল জনগণ ও শুভানুধ্যায়ী দের প্রতি সালাম ও দোয়া এবং সহযোগিতা কামনা করেছেন আব্দুল আলীম সেলু। তিনি বলেন, স্বপ্নের সোনার বাংলা শক্তিশালী করতে স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তির একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসেবে বিগত সময় থেকে জনগণের সাথে কাজ করে যাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, ইউনিয়ন বাসীর সহযোগীতা পেলে আমি বিজয়ী হবো। আমি চাই শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা, কর্মসংস্থান সহ নানা ক্ষেত্রে যেসব অগ্রণী ভূমিকা নেয়া দরকার সেই সব কাজ সকলকে নিয়ে ও সকলের মতামতের ভিত্তিতে করবো। ফুলতলা ইউনিয়নে উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের সুফল ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে কাজ করবো।

সমাজসেবক আব্দুল আলীম সেলু কে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে দেখতে চায় স্থানীয় কর্মী সমর্থক সহ সাধারণ জনগণ। এ লক্ষে এরই মধ্যে আব্দুল আলীম সেলু কে  ঘিরে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন স্থানীয়রা।

 

অন্যান্য খবর পড়ুন