শিরোনামঃ

জুড়ীতে সততা সংঘের শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার জেলার জুড়ীতে “ছোট ধামাই উচ্চ বিদ্যালয়ে” সততা স্টোর পরিদর্শন ও সততা সংঘের শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্প্রতি ছোট ধামাই উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশন সিলেট বিভাগীয় পরিচালক এস.এম মফিদুল ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জুড়ী উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য ও জুড়ী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সুমন।

ছোট ধামাই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রনজিত কুমার সিংহের সভাপতিত্বে ও সহকারী শিক্ষক জাকারিয়া মাহমুদের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশন হবিগঞ্জ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক কামরুজ্জামান, দুর্নীতি দমন কমিশন সিলেটের উপ-পরিচালক নূর আলম সাদি, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরােধ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব তাজুল ইসলাম, ছোট ধামাই উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক সমরজিৎ সিংহ, দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়ন শাখার সহ-সভাপতি হাজী আমজাদ হোসেন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী শিল্পা দেব।

ওইদিন সকালে ছোট ধামাই উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে চলমান সততা স্টোর পরিদর্শন করেন দুর্নীতি দমন কমিশন সিলেট বিভাগীয় পরিচালক এস.এম মফিদুল ইসলাম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে দুর্নীতি দমন কমিশন সিলেট বিভাগীয় পরিচালক এস.এম মফিদুল ইসলাম বলেন, জনসম্পৃক্ততা ছাড়া দুর্নীতি দমন করা যায় না। জনসম্পৃক্ততা ছাড়া শুধু আইন দিয়ে দুর্নীতি দমন করা সম্ভব না। জনসচেতনতা লাগবে। আমরা চেষ্টা করছি জনগণকে সচেতন করতে, তারাও যেন দুর্নীতি দমনে অংশগ্রহণ করে।

তিনি আরো বলেন, যুবসমাজই দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করার ক্ষেত্রে উদ্দীপনামূলক ভূমিকা নিতে পারে। একটি সুন্দর, সুশৃঙ্খল যুবসমাজের ভাবমূর্তির ওপর সমগ্র জাতির নীতি-নৈতিকতার ভবিষ্যৎ নির্ভর করে। দেশের সব প্রতিষ্ঠানের পরিচালনার দায়িত্ব প্রাজ্ঞ প্রবীণদের ওপর থাকে। তাঁদের অভিজ্ঞতা, সততা, দক্ষতা এবং ন্যায়নিষ্ঠার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। কিন্তু প্রতিষ্ঠানের কার্যাবলি বাস্তবায়নের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে তরুণ ও যুবক বয়সীরা। তরুণদের মেধা, শ্রম ও দক্ষতা প্রতিষ্ঠানের সাফল্য এনে দেয়। অল্প কিছুসংখ্যক বিপথগামী বাদে সমাজের অধিকাংশ তরুণ-যুবক বিশুদ্ধ ও আদর্শবান। তাদের একত্র করা সম্ভব হলে তাদের দিয়েই দেশে বিরাজমান দুর্নীতি প্রতিরোধ করা যাবে। সুনাগরিকেরা এমন একটি সামাজিক পরিবেশ চায়, যেখানে তারা সবাই মিলে পরিবার-পরিজন নিয়ে নিরাপদে সুখে-শান্তিতে বসবাস করতে পারে। যেখানে দুর্নীতি হবে, সেখানেই শান্তিপূর্ণভাবে জোরালো প্রতিবাদ জানাতে হবে।

দেশের জাতীয় সমস্যা দুর্নীতি প্রতিরোধ করা শুধু দুর্নীতিবাজদের শাস্তি দিয়ে সম্ভব নয়, এ জন্য প্রয়োজন গণসচেতনতা, দেশপ্রেম এবং তারুণ্যের অঙ্গীকার। তরুণ ও যুবকদেরই দুর্নীতি প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে। সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আন্দোলনের মাধ্যমে দুর্নীতি প্রতিরোধ করা সম্ভব।

অন্যান্য খবর পড়ুন